যশোরে জুম্মান হত্যাকান্ডের ০৩ আসামী সহ মোট ০৫ জন গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৪:১৪ অপরাহ্ণ , ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, সোমবার , পোষ্ট করা হয়েছে 3 weeks আগে
ছবি- কালের বিবর্তন

শনিবার(১০ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় যশোর রেলষ্টেশন এলাকায় সংঘটিত চাঞ্চল্যকর জুম্মান হত্যাকান্ডের অন্যতম ০৩ জন হত্যাকারী যশোর সদর হতে, গাঁজা সহ একজন মাদক কারবারীকে অভয়নগর উপজেলা হতে এবং নড়াইল জেলা হতে একজন যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬, যশোর ক্যাম্পের সদস্যরা।

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৬ সিপিসি-৩, বকচর, যশোরেরর অধিনায়ক মেজর মোহাম্মাদ সাকিব হোসেন এক “প্রেস রিলিজ” এ জানিয়েছেন- “র‌্যাব ফোর্সেস আমাদের প্রিয় মাতৃভূমির অপ্রতিরোধ্য উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে ত্বরান্বিত করতে এবং সন্মানিত নাগরিকদের জন্য টেকসই নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আইনের আলোকে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছে। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে সংঘটিত চাঞ্চল্যকর অপরাধে জড়িত অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে র‌্যাব জনগনের সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে”।

“যশোর জেলার কোতয়ালী মডেল থানাধীন যশোর রেলষ্টেশন ২নং প্লাটফরম এর সামনে গত ১০/০২/২০২৪ তারিখ সময় আনুমানিক ১৮.২০ ঘটিকায় হঠাৎ করে কিছু অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীরা ভিকটিম জুম্মান (৩৪)‘কে আক্রমণ করে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে গুরুত্বর রক্তাক্ত জখম করতঃ সন্ত্রাসীরা দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন ভিকটিমকে উদ্ধার করে যশোর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।

উক্ত ঘটনাটি যশোর শহরের জনবহুল একটি স্থানে ঘটায় জনমনে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। ঘটনার বিষয়ে র‌্যাব-৬, যশোর সংবাদ প্রাপ্ত হয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে যায় এবং ঘটনার সাথে জড়িত হত্যাকারীদের চিহ্নিত পূর্বক গ্রেফতারের লক্ষ্যে গোয়েন্দা তৎপরতা শুরু করে এবং ঘটনাস্থলের উক্ত সময়ের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে হত্যার সাথে জড়িত আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রাখে।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, যশোর জেলার কোতয়ালী মডেল থানাধীন যশোর রেলষ্টেশনের ২নং প্লাটফরমের সামনে ভিকটিম জুম্মান (৩৪) কে হত্যার উদ্দেশ্যে কয়েকজন সন্ত্রাসী এলোপাতাড়ি ছূরিকাঘাত করছে। উক্ত হত্যাকান্ডের বিষয়ে ভিকটিমের ভাই গত ইং ১১/১১/২০২৩ তারিখ বাদী হয়ে খুলনা রেলওয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা রুজু সাপেক্ষে এজাহারনামীয় হত্যাকারীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে র‌্যাব-৬, যশোর ক্যাম্পের একাধিক আভিযানিক দল মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করে”।

“র‌্যাব-৬, যশোর ক্যাম্প গোপন সূত্র ও তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে গত ইং ১১/১১/২০২৩ তারিখ রাতে জানতে পারে যে, চাঞ্চল্যকর জুম্মান হত্যা মামলার অন্যতম আসামী শুভ (৩২) ও সবুজ (২৮) যশোর জেলার কোতয়ালী মডেল থানাধীন টিবি ক্লিনিক মোড় এলাকায় আত্মগোপনে আছে। প্রাপ্ত তথ্যোর ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের লক্ষ্যে আভিযানিক দলটি ইং ১১/০২/২০২৪ তারিখ রাত ২২.৫০ ঘটিকার সময় উক্ত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে উক্ত হত্যা মামলার ৫নং আসামী ১। শুভ (৩২), পিতা- রবি, সাং- টিভি ক্লিনিক মোড়, ৬নং আসামী ২। সবুজ (২৮), পিতা- ইমান আলী ড্রাইভার, সাং- বেজপাড়া বিহারি পট্টি, থানা- কোতয়ালী মডেল, জেলা- যশোরদ্বয়কে গ্রেফতার করে। পরবর্তীতে আভিযানিক দলটি সংবাদ প্রাপ্ত হয় যে, অত্র হত্যা মামলার ৯নং আসামী মোহাম্মদ (২২) যশোর জেলার কোতয়ালী মডেল থানাধীন কুইন্স হাসপাতালের সামনে অবস্থান করছে। তাৎক্ষণিক আভিযানিক দলটি কুইন্স হাসপাতালের সামনে অভিযান পরিচালনা করে আসামী ৩। মোহাম্মদ (২২), পিতা- বাবু আলী, সাং-পুলেরহাট কৃষ্ণবাটি, থানা- কোতয়ালী মডেল, জেলা- যশোরকে গ্রেফতার করে”।

“গ্রেফতারকৃত আসামীদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এবং তারা জানায়, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে পূর্ব শত্রুতা ছিল এবং ঘটনার দিন পূর্ব পরিকল্পিতভাবে যশোর রেলষ্টেশনে তারা একত্রিত হয়েছিল ভিকটিম জুম্মান (৩৪) কে হত্যা করার জন্য”।

অপরদিকে, নিয়মিত টহলের অংশ হিসেবে র‌্যাব-৬, সিপিসি-৩, যশোর ক্যাম্পের এর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের মাধ্যম জানতে পারে যে, “যশোর জেলার অভয়নগর থানাথীন ০৭ নং শুভরাড়া ইউনিয়ন এর ০৬ নং ওয়ার্ডের হিদিয়া(পুর্ব পাড়া) গ্রামের জনৈক মোঃ জামাল শেখ (২৮) এর বসতবাড়িতে কতিপয় ব্যক্তি মাদকদ্রব্য গাঁজা ক্রয় বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে মজুদ করেছে। উক্ত সংবাদ প্রাপ্ত হইয়া ইং ১২/০২/২০২৪ তারিখ রাত আনুমানিক ০০.৪৫ ঘটিকার সময় উক্ত বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে বাড়ির মালিক আসামী ১। মোঃ জামাল শেখ (২৮), পিতা- মোঃ হালিম শেখ, সাং- হিদিয়া(পুর্ব পাড়া), থানা- অভয়নগর, জেলা- যশোরকে গ্রেফতার করে। পরবর্তীতে সাক্ষীদের সম্মুখে গ্রেফতারকৃত আসামীর শয়নকক্ষের খাটের নিচ হইতে ০২ (দুই) কেজি গাঁজা উদ্ধার পূর্বক জব্দ করা হয়”।

“গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ জামাল শেখ (২৮)কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে মাদক ক্রয়-বিক্রয়ের সাথে জড়িত বলে স্বীকার করে। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে নড়াইল জেলার কালিয়া থানার মামলা নং-১১, তারিখ- ৩০ /০৮/২০২৩, ধারা- ৩৬(১) সারণির ১৯(ক) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ মামলা বিচারাধীন রয়েছে”।

“র‌্যাব-৬, সিপিসি-৩, যশোর ক্যাম্পের অপর একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, ডিএমপি ঢাকার মিরপুর থানার মামলা নং ২৩, তাং ১২/০৬/২০১৮, ধারা- ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯ (১) সারণীর ১ (খ) মূলে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী চন্দন কুমার ঘোষ (৩৩) নড়াইল জেলার লোহাগড়া থানাধীন লুটিয়া এলাকায় আত্মগোপনে আছে। উক্ত সংবাদ প্রাপ্ত হয়ে আভিযানিক দলটি উক্ত এলাকায় ইং ১২/০২/২০২৪ তারিখ সময় রাত ০৪.১৫ ঘটিকার সময় অভিযান পরিচালনা করে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী চন্দন কুমার ঘোষ (৩৩), পিতা- বনবিলাস ঘোষ, সাং- লুটিয়া, টায়ারপট্টি, হাজীবাড়ী, দীপনগর, থানা- লোহাগড়া, জেলা- নড়াইলকে গ্রেফতার করে”।

“গ্রেফতারকৃত যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, গত ইং ১২ জুন ২০১৮ তারিখে হেরোইন সহ ডিএমপি ঢাকার মিরপুর থানা পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতার হয়। পরবর্তীতে তিন মাস জেল হাজতে থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে নিজ এলাকায় এসে পুনরায় মাদক ব্যবসা অব্যাহত রাখে। তার বিরুদ্ধে নড়াইল জেলার লোহাগড়া থানার মামলা নং-১৭, তাং- ১১ জুন ২০২৩, ধারা- ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬ সারণীর ১০ (ক) মামলা বিচারাধীন রয়েছে”।

আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে “প্রেস রিলিজ” এ জানানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর