উগ্রবাদ প্রতিরোধে জনসচেতনতামূলক তিনদিনব্যাপী সেমিনার

প্রকাশিত: ৬:৩৫ অপরাহ্ণ , ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, মঙ্গলবার , পোষ্ট করা হয়েছে 10 months আগে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় উগ্রবাদ প্রতিরোধে কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের আয়োজনে ও জেলা পুলিশের সহায়তায় উগ্রবাদ প্রতিরোধে জনসচেতনতা মূলক কার্যক্রম ও উগ্রবাদ দমনে স্পষ্ট ধারনা বিষয়ক তিনদিনব্যাপী সেমিনার শুরু হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনদিন ব্যাপী সেমিনারের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ শাহগীর আলম।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পুলিশ সুপার মোঃ শাখাওয়াত হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত “উগ্রবাদ প্রতিরোধে আইন-শৃংখলা বাহিনীর করনীয় শীর্ষক দিনব্যাপী সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কারাগারের তত্ত¡াবধায়ক মোঃ শহীদুল ইসলাম ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোঃ বাহারুল ইসলাম মোল্লা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডিএমপির সোয়াট কমান্ডার জাহিদুল ইসলাম সোহাগ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোঃ শাহগীর আলম বলেন, সাধারণ মানুষ কখনো উগ্রবাদে জড়ায়না। যারা উচ্চ পর্যায়ের লোকজন এবং অতি মেধাবী তারাই এই সকল কাজে যোগ দেন। আমরা সবাই একে অপরের প্রতি এবং আমাদের সমাজের প্রতি খেয়াল রাখবো। আমরা যদি সবাই এক থাকি তাহলে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে কখনোই জঙ্গীবাদ মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারবে না। আমরা আগামী ২০৪১ সালে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা অর্জন করব।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন বলেন, জঙ্গীবাদের প্রতি বর্তমান সরকারের যে জিরো ট্রলারেন্স আমরা আইন-শৃংখলা বাহিনী তা বাস্তবায়ন করবো। জিরো ট্রলারেন্স নীতিতে আমরা কাজ করে এখন আমরা অনেকটা সফল। বাংলাদেশ এখন অনেকটাই ঝুঁকিমুক্ত। আমরা জঙ্গীবাদ দেখতে চাই না। আমরা শান্তিতে থাকতে চাই। আমরা অসা¤প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী। আমরা ২০৪১ সালের মধ্যে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ দেখতে চাই। সে জন্য জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে আমাদেরকে ঐকবদ্ধ হয়ে সচেতন থাকতে হবে।
দিনব্যাপী সেমিনারে জেলা পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তাগন, বিভিন্ন থানার অফিসার ইনচার্জগন, আনসার ও জেলা কারাগারের কর্মকর্তা ও কারারক্ষীগন উপস্থিত ছিলেন।

তিনদিন ব্যাপী সেমিনারের দ্বিতীয় দিন আজ বুধবার প্রথম পর্বে সকাল সাড়ে ৯টায় উগ্রবাদ প্রতিরোধে আলেম সমাজের ভ‚মিকা শীর্ষক সেমিনারে জেলার বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, খতিব, মোয়াজ্জেম ও মাদরাসার শিক্ষকগন উপস্থিত থাকবেন। দ্বিতীয় পর্বে দুপুর আড়াইটায় অনুষ্ঠিতব্য উগ্রবাদ প্রতিরোধে শিক্ষক/ শিক্ষার্থী, গণমাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের ভ‚মিকা শীর্ষক সেমিনারে জেলার গণমাধ্যম কর্মী, শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও সুশীল সমাজের নাগরিকগণ উপস্থিত থাকবেন।

সেমিনারের শেষ দিন বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় অনুষ্ঠিতব্য “উগ্রবাদ প্রতিরোধে আইন-শৃংখলা বাহিনীর করনীয় শীর্ষক সেমিনারে জেলায় কর্মরত চৌকিদার ও দফাদার এবং দ্বিতীয় পর্বে বেলা ১২টায় অনুষ্ঠিতব্য “উগ্রবাদ প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধিদের ভ‚মিকা শীর্ষক সেমিনারে জেলার সকল ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারগন উপস্থিত থাকবেন।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর