১০০-র মধ্যে ১১০ পাওয়া কথাটির অনেকটা কথার কথা মনে হলেও সত্যিই এমন একজন মানুষ ছিলেন যিনি কথাটি সত্যি প্রমাণ করেছিলেন

প্রকাশিত: ১:৫৮ অপরাহ্ণ , ১ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে
জয়নুল আবেদীন

‘১০০-র মধ্যে ১১০ পাওয়া’ কথাটির অনেকটা কথার কথা মনে হলেও সত্যিই এমন একজন মানুষ ছিলেন যিনি কথাটি সত্যি প্রমাণ করেছিলেন।অথবা বলা যায় তাঁর জন্যই কথাটি প্রচলিত হয়েছে। হিন্দু স্কুলে এন্ট্রান্সের টেষ্ট পরীক্ষায় তিনি অঙ্কের সব প্রশ্নগুলির উত্তর তো করেছিলেনই, উপরন্ত জ্যামিতির প্রশ্নগুলি একাধিক উপায়ে সমাধান করে দেন। অংকের শিক্ষক শ্রী উপেন্দ্রনাথ বক্সী খুশি হয়ে তাঁকে ১০০-র মধ্যে ১১০ দিয়েছিলেন।

মাধ্যমিকের পর তিনি ভর্তি হন প্রেসিডেন্সী কলেজে। ১৯১১ খ্রিষ্টাব্দে আই.এস.সি পাশ করেন প্রথম হয়ে। ১৯১৩ খ্রিষ্টাব্দে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম হয়ে স্নাতক এবং ১৯১৫ খ্রিষ্টাব্দে একই ফলাফলে মিশ্র গণিতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। এই পরীক্ষায় তিনি রেকর্ড স্কোর করেন যা এখনও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে অক্ষত আছে |

প্রশান্তচন্দ্র মহলানবীশ বলেছিলেন , “যখন তাঁকে নিয়ে আলোচনা করবে , মনে রেখ ,এইরকম মেধা নিয়ে আর কোনও ভারতীয় বিজ্ঞানী আসেননি|”

তাঁর শিক্ষক প্রফেসর ডি এন মল্লিক সস্নেহে ডেকে বললেন, “এত বেশি নম্বর পেয়েছ পরীক্ষায়, বড় বেমানান লাগছে হে”।

বিদেশে গিয়ে পড়ালেখা করার ইচ্ছে ছিলো তাঁর  ছোটোবেলা থেকেই । সেই সুযোগ হয়নি। কিন্তু তিনি তাঁর শিক্ষার প্রভাব ছড়িয়ে দিয়েছিলেন পুরো বিশ্বে।

১৯২১ সাল, তখন তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একজন রিডার। একদিন ক্লাসে আলোকতড়িৎ ক্রিয়া ও অতিবেগুনি রশ্মি বিপর্যয় পড়ানোর সময় তিনি ভুল করে বসেন এক অঙ্কে। পরবর্তীতে সেই ভুল থেকেই বেরিয়ে আসে সঠিক এক তত্ত্ব যা বোস-আইনস্টাইন সংখ্যাতত্ত্ব নামে পরিচিত।এই তত্ত্ব প্রয়োগ করেই আবিস্কৃত হয় নতুন এক কণার।তাঁর সম্মানে এই কণার নামকরণ করা হয় বোসন কণা।

মনে প্রাণে বাঙ্গালী এই বিজ্ঞান প্রেমী ব্যক্তিত্ত্ব বাংলাভাষার প্রতি ছিলেন অত্যন্ত অনুরাগী। তিনি সবসময় চেয়েছেন এদেশের মানুষ বাংলাভাষায় বিজ্ঞানচর্চা করুক। এই প্রসঙ্গে তাঁর অমর উক্তি, “যাঁরা বলেন বাংলা ভাষায় বিজ্ঞান হয় না, তাঁরা হয় বাংলা জানেন না, নয় বিজ্ঞান বোঝেন না।”

তিনি বাংলা তথা ভারতের গর্ব বিজ্ঞানী সত্যেন্দ্রনাথ বসু | ১৮৯৪ খ্রিষ্টাব্দে ১ জানুয়ারি আজকের দিনেই উত্তর কলকাতার গোয়া বাগান অঞ্চলে স্কটিশ চার্চ কলেজিয়েট স্কুলের পাশে ২২ নম্বর ঈশ্বর মিত্র লেনে সত্যেন্দ্রনাথ বসুর জন্ম |

শুভ জন্মদিন কিংবদন্তি।
সত্যেন্দ্রনাথ বসু (১ জানুয়ারি ১৮৯৪ – ৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৭৪ )

মন্তব্য লিখুন