স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর বেহেশত নয় মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেশত

প্রকাশিত: ১:৩০ পূর্বাহ্ণ , ১২ মার্চ ২০২০, বৃহস্পতিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে

ইসলাম ধর্মের কোথায় আছে “স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর বেহেশত”?

কিছু ভণ্ড ধর্ম ব্যাবসায়ী আজ এই ফতোয়া দিয়ে নারীদেরকে এখনো প্রাণীর মতো ব্যাবহার করতে চায়।।

একজ মানুষের বেহেশত একটায়।সেটা হচ্ছে “মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেশত “।আসুন কুসংস্কার আর ধর্মীয় অপব্যাখ্যা থেকে সমাজকে রক্ষা করি।

“স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর বেহেশত নয়, মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেস্ত”।আমাদের দেশের একটা প্রচলিত কথন “স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর বেহেশত”। এটা একটা জাল হাদিস

“পতিদেব”বলে একটা কথা প্রচলিত আছে। পতিদেব মানে হলো পতি দেবতাতুল্য। হিন্দু সমাজে স্বামীকে পুজাও করা হয়। যাইহোক, “পতিদেব” বা “স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর বেহেশত” এই কথন ভারতীয় উপমহাদেশে ধর্ম এবং সমাজ দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়ে আছে। অবাধ্য স্ত্রীকে বশে আনতে এই কথন/নিয়মের ব্যবহার করা হয়। শুধু অবাধ্য নয়, স্ত্রী যদি তার বিবেচনায় সঠিকও থাকে তবুও এই নিয়ম জোর করে চাপিয়ে দেয়া হয় স্ত্রীর উপর। এনিওয়ে, স্বামী নিজেই যদি জাহান্নামে যায় তাহলে তার পায়ের নিচে বেহেশত কেমনে থাকবে !

একজন ভিক্ষুকের ভিক্ষা দেয়ার ক্ষমতা আছে কি-না একটু ভেবে দেখুন তো!! “স্বামীর পায়ের নীচে স্ত্রীর বেহেশত।…আলহাদিস”

যদি বলি সিহাসিত্তার(বিশুদ্ধ ৬খানা হাদিস) কোন জায়গায় লেখা আছে? বলতে পারে না। স্বামীর পায়ের নীচে স্ত্রীর জান্নাত এরূপ হাদীছ নেই। তবে এরূপ হাদীছে এসেছে স্বামীই হচ্ছে জান্নাত, স্বামীই হচ্ছে জাহান্নাম (নাসাঈ কুবরা, সিলসিলা ছাহীহাহ হা/২৬১২, ১৯৩৪)।

আর মায়ের পায়ের নীচে জান্নাত এ হাদীছ ‘হাসান ছহীহ’ (নাসাঈহা/৩১০৪)।

সুনানে-আবু-নাসাঈ তে বলা হয়ছে: “মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেস্ত।”

তিরমিজী তে লেখা আছে:”স্বামী যদি স্ত্রীর প্রতি সন্তুষ্ট হতে পারে(দ্বীনের ব্যাপারে)তাহলে সে স্ত্রী জান্নাতে যাবে।

হাদীস শরীফে স্পষ্টভাবে উল্লেখ আছে মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেশত।

কিন্ত স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর বেহেস্ত কোথাও লেখা নেই। তবে “স্বামীর পদতলে স্ত্রীর বেহেশত” এই কথা সরাসরি পবিত্র হাদিস শরীফে উল্লেখ না থাকলেও স্বামীর সন্তুষ্টি-অসন্তুষ্টির উপর স্ত্রীর বেহেশত-দোযখ নির্ণয় করা হবে মর্মে বেশ কিছু হাদিস শরীফ বর্ণিত রয়েছে। স্বামীর প্রতি চূড়ান্ত সম্মান ও শ্রদ্ধাবোধ থাকা প্রতিটি স্ত্রীর দায়িত্ব। “সুনানে আবু দাউদে রাসূল (সাঃ)বলেন ,”আমি যদি নারীদের মাথা নিচু করতে বলতাম তাহলে স্বামীর সামনে নিচু করতে বলতাম।কারণ আল্লাহ স্বামীদের বিশেষ মর্যাদা দিয়েছেন তাদের স্ত্রীদের উপর।”

এই হাদিস টি লক্ষ করুন প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহুআলাইহি ওয়াসাল্লাম ‘যদি’ এবং ‘বলতাম’ শব্দ ২টি বলেছেন।এখানে মর্যাদার কথা বলা হইছে ।তার মানে এই না,যে নারীকে ছোট করা হইছে।

¤¤ “কোন স্বামী তার স্ত্রীকে নিজের প্রয়োজনে আহবান করল, আর স্ত্রী সাড়া দিল না; সে স্ত্রী যেন জাহান্নামকেই তার ঠিকানা বানিয়ে নিল।” ¤¤