সুন্দরগঞ্জের পিআইও স্বন্দ্বীপে নয়,এবার রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে বদলি

প্রকাশিত: ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ , ১০ মার্চ ২০২০, মঙ্গলবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি : দুর্নীতিতে অভিযুক্ত গাইবান্ধার বিতর্কিত সেই প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) নুরুন্নবী সরকারকে অবশেষে রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে বদলির আদেশ দিয়েছে অধিদপ্তর। আগামি ১৬ মার্চের মধ্যে নুরুন্নবীকে সুন্দরগঞ্জ ছেড়ে বাঘাইছড়িতে যোগদানের আদেশ দেওয়া হয়। অন্যথায় ১৬ মার্চ অপরাহে কর্মবিমুক্ত (স্ট্যান্ড রিলিজ) বলে গণ্য হবেন বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়। ৯ মার্চ সোমবার বিকেলে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের উপ-সচিব (উপ-পরিচালক) লুৎফুন নাহার স্বাক্ষরিত অফিস আদেশের এই তথ্য জানা গেছে।

এরআগে, দুর্নীতি-লুটপাটের নানা অভিযোগে নুরুন্নবীর বিরুদ্ধে যমুনা টেলিভিশনসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রচারের পর গেল বছরের ২৮ সেপ্টেম্বর নুরুন্নবীকে চট্রগ্রামের সন্দ্বীপে বদলির আদেশ দেয় অধিদপ্তর। কিন্তু‘ সেই আদেশ অমান্য করায় স্ট্যান্ড রিলিজের পর অসুস্থতার অজুহাতে দুই মাসের বেশি সময় কর্মস্থলের বাইরে থাকেন নুরুন্নবী। পরে গত ৩ ডিসেম্বর উচ্চ আদালতের রিট পিটিশনে বদলি স্থগিতাদেশ নিয়ে সুন্দরগঞ্জেই ফেরেন তিনি। কিন্তু তার স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে ৫ জানুয়ারী চেম্বার আদালতে অধিদপ্তরের সচিব শাহ্ কালামের আপিলের প্রেক্ষিতে গত ২৪ ফেব্রুয়ারী পুর্ণাঙ্গ শুনানীতে রিট পিটিশন স্থগিত রেখে অধিদপ্তরের বদলির আদেশ বহাল রাখে আদালত। ২০১৫ সালে সুন্দরগঞ্জে যোগদানের পর ঘুষ-দুর্নীতি-লুটপাটের রাজত্ব কায়েমের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনসহ (দুদক) নুরুন্নবীর বিরুদ্ধে মামলা হয় পাঁচটি। দুর্নীতির একাধিক অনুসন্ধানি প্রতিবেদন প্রচারে যমুনা টেলিভিশন ও কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের ১২ গণমাধ্যম-মানবাধিকারকর্মীর বিরুদ্ধে গত ১৬ অক্টোবর রংপুর আদালতে পৃথক দুটি মানহানীর মামলা করেন নুরুন্নবী। এদিকে, ঘুষ-দুর্নীতি, কমিশন বাণিজ্যে সিন্ডিকেট অবলম্বণ, ভ্রমণভাতার নামে অর্থ লোপাট ও ক্ষমতার অপব্যবহার-অসদচারণসহ নুরুন্নবীর বিরুদ্ধে হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তাকে হুমকি ও হয়রানীর অভিযোগের তদন্তে প্রমাণ পেয়েছে জেলা প্রশাসনের দুই দফায় গঠিত তদন্ত কমিটি। দুর্নীতি প্রমাণে নুরুন্নবীর বিরুদ্ধে শাস্তির সুপারিশ করে অধিদপ্তরে প্রতিবেদন দাখিল হলেও অদৃশ্য কারণে এখনো কোন ব্যবস্থাই হয়নি তার বিরুদ্ধে। ফলে ক্ষমতার দাপট ও প্রভাব বিস্তারে ক্ষমতাসীন দলের কতিপয় নেতাদের সঙ্গে আঁতাত করে আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেন নুরুন্নবী। শুধু তাই নয়, চলমান দুটি আশ্রয়ণ প্রকল্প ও ১২টি ব্রিজ নির্মাণ কাজে শ্যালকসহ নিজস্ব লোকজনকে দিয়ে ব্যাপক অনিয়ম-দুর্নীতিসহ গত ৫ মাসে মামলা-হামলা আর নানা অন্যায়-অপকর্মে বিতর্কিত কর্মকা-ে আলোচিত হন নুরুন্নবী।

এদিকে এতো অভিযোগ উঠার পরেও আবারো সেই ব্যক্তিকে দেশের গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকায় বর্তমান সরকারের গ্রাম কে শহর বানানোর পরিকল্পনা বাধাগ্রস্থ হওয়ার সম্ভবনা থাকার পরে কেন বিতর্কিত পিআইওকে সাসপেন্ড করা হচ্ছে না এ নিয়ে গাইবান্ধাবাসীর মাঝে নানা জল্পনা কল্পনা চলছে।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর