সরাইল অরুয়াইল রাস্তা ভাঙনের আতংকে এখন লাখো মানুষ

প্রকাশিত: ৩:০৫ অপরাহ্ণ , ১৬ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 3 months আগে

মোঃ তাসলিম উদ্দিন সরাইল প্রতিনিধিঃ ভাঙন অব্যাহত থাকায় সড়কটি বিলীন হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। বাতাসের সঙ্গে হাওরের ঢেউয়ের আঘাতে সরাইল-অরুয়াইল রাস্তা ভাঙনের আতংকে এখন লাখো মানুষ।ব্রাক্ষণবাড়িয়া সরাইল উপজেলার দুটি ইউনিয়ন ছাড়া ও হাওর অঞ্চলের পার্শ্ববর্তী এলাকা যোগাযোগের লাখো মানুষের একমাত্র সড়ক।সরাইল-অরুয়াইল রাস্তার পাকশিমুল ভুঁইশ্বর অংশে নির্মাণ না করাই সড়কের দু পাশে ঢেউয়ের ভাঙনে প্রতিদিন বিলীন হচ্ছে সড়ক। গতকাল সরেজমিনে জানাযায়, অরুয়াইল-পাকশিমুল ইউনিয়নের লাখো মানুষের যাতায়াতের একমাত্র সড়কটি তাদের কাছে এখন আতঙ্ক। প্রতিনিয়ত গিলে খাচ্ছে সড়কটির দু পাশের অংশ। দুদিকেই হাওর থেকে আসা পানির ঢেউয়ের স্রোতে দুই পাড়ে ভাঙনে লাখো মানুষ আতংকে দিন-রাত পাড় করছে।এ ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে যানবাহনে মানুষের দুর্ভোগের শেষ নেই।স্থানীয়দের দাবি, বেশ কয়েক বছর ধরে বর্ষা মৌসুমে এল,জি,ই ডি’র কর্মকর্তারা শুধু পরিদর্শন করেই তাদের কাজ শেষ করছেন। ভাঙ্গনরোধে কোন দৃশ্যমান ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।

এ বিষয়ে সরাইল উপজেলা এল,জি,ই,ডি প্রকৌশলী মোছাঃ নিলুফা ইয়াসমিন বলেন, সড়কে ভাঙ্গন কবলিত পাকশিমুল ভুঁইশ্বর অংশে ভাঙন রোধে দ্রুত কাজের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।উপজেলার পাকশিমুল গ্রামের বাসিন্দা স্কুল ছাত্র মারজান অভিযোগ করে বলেন, নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে রাস্তাটি নির্মাণ করায় রাস্তাটি ভেঙ্গে যাচ্ছে। এ সড়কে দিয়ে প্রতিদিন বিভিন্নস্কুল-কলেজের হাজার হাজার শিক্ষার্থীরা মুমূর্ষ রোগী যানবাহনসহ এলাকার লাখো মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাফেরা করছে। সড়কে ভাঙ্গন রোধে দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যাবে।
অরুয়াইল বাজার ইসলামী ব্যাংকে’র এজেন্ট মালিক মোঃ মোখলেছুর রহমান বলেন, ভাঙনে কারনে বর্তমানে ঝুঁকি নিয়েই এই সড়কে যানবাহন চলাচল করছে। সড়কটি ভেঙে গেলে বিপাকে পড়বে ২ ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষ। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ভুঁইশ্বর অংশে নির্মাণের কাজ না করাই ভাঙন দেখা দিয়েছে।তবে পাকশিমুল থেকে ভুঁইশ্বর পযর্ন্ত কাজ শেষ না করতেই অনেক জায়গা ভাঙন শুরু হয়েছে। কাজের মান ভাল না, রাস্তার কাজ দেখার কেউ নেই। তাদের মন মতে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে কাজ করায় পানি ঢেউয়ের তোড়ে রাস্তাটি ভেঙে যাচ্ছে।

পাকশিমুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন,সরাইল- অরুয়াইল সড়কটি এ ভাটি অঞ্চল মানুষের একমাত্র যোগাযোগের ব্যবস্থা। পাকশিমুল থেকে ভুঁইশ্বর-চুন্টা ব্রীজ থেকে উচালিয়া পাড়া মোড় পযর্ন্ত দায়সারা মত সড়কে সংস্কারের কাজ শেষ করেছেন।ভুঁইশ্বর অংশে খানাখন্দে বড় বড় গর্তের মাঝে আবার দুপাশে সড়কে ভাঙন। এই ভাঙ্গন রোধ করতে না পারলে এই এলাকার লাখো মানুষের দুর্ভোগের শেষ থাকবেনা। নতুনভাবে পানির স্রোত বৃদ্ধি পাচ্ছে ও সড়কে ভাঙ্গন ব্যাপক আকার ধারন করছে।অরুয়াইল ইউনিয়নপরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মোশারফ হোসেন বলেন,সড়কের ভূঁইশ্বর,কালিশিমুল, ব্রাহ্মণগাঁও ও পাকশিমুল এলাকায় ১০-১১টি জায়গায় ভয়াবহ ভাঙন ধরেছে। সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্তের।
সড়কের এই অংশে কোন অদৃশ্যের কারণে টেন্ডার হয়নি এটা আমার বোধগম্য না। ভাঙন অব্যাহত থাকলে যেকোনো সময় সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, বর্তমানে যারা কাজ করেছেন আগে যারা কাজ করেছে অনিয়ম করে যেনতেনভাবে সড়কে কাজ শেষ করেছে। সড়কে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী নিয়ে আমি অনেক প্রতিবাদ করেছি। তারা সবাই মিলেমিশে অনিয়মের মাঝেই সড়কের কাজ শেষ করে।কে শুনে কার কথা-? যত কষ্ট এলাকার মানুষের।প্রকৌশলী অফিসের লোকের তাে আর কষ্ট হয় না। অফিসার লোকের অবহেলায় এখন অব্যাহত ভাঙনের কারণে আশঙ্কায় আছেন সড়ক ব্যবহারকারী প্রায় লক্ষাধিক লোকজন।
সরাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ এস এম মোসা বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করা হয়েছে।উপজেলা প্রকৌশলীকে বলা হয়েছে ভাঙ্গন প্রতিরোধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করতে বলে জানান তিনি।

সরাইল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ রফিক উদ্দিন ঠাকুর সাংবাদিকদের জানান,অরুয়াইল সড়কে ভাঙন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রায় ৫ লাখ টাকার কাজ করা হয়েছে। আরও ৪-৫ লাখ টাকার কাজ করানো হবে। বতর্মানে সেই সড়কে যোগাযোগ ব্যবস্হা যেন বিচ্ছিন্ন না হয়,সেই ব্যপারে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর