সরাইলে বিদ্যুৎ এখন ভেলকি খেলা !

প্রকাশিত: ১২:৩৪ পূর্বাহ্ণ , ২ এপ্রিল ২০২১, শুক্রবার , পোষ্ট করা হয়েছে 2 weeks আগে

মোঃ তাসলিম উদ্দিন সরাইল(ব্রাহ্মণবাড়িয়া): সামনে আসছে পবিত্র রমজান। তারাবীর নামাজ, সেহরী ও ইফতার। টেকনিক্যালি সমস্যা না থাকলেও রয়েছে ঘন-ঘন বিদ্যুৎ আসা-যাওয়ার খেলা। সরাইলের বিদ্যুৎ গ্রাহকদের জন্য’ বিদ্যুৎ এখন ভেলকি খেলা’। এদিকে সরাইল বিদ্যুৎ বিভাগের কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় কে দায়ী করেছেন, সরাইলের বিদ্যুৎ ব্যবহারকারী গ্রাহকরা।
সরেজমিনে জানা যায়, কিছুদিন আগেও সরাইইলের বিদ্যুত সরবরাহ অনেক ভাল ছিল। বর্ষার মৌসুম শুরু না হতেই। গরমের তাপ পড়তে শুরু করেছে এরমধ্যে বিদ্যুতের শুরু হল ঘনঘন ভেলকি বাজি। ঘন্টায় কতবার যায় আর আসে তার হিসাব করা বড় কঠিন। গরমের মধ্যে বৃদ্ধ ও শিশুসহ অফিসে কর্মরত কর্তাগণ ভোগান্তিতে পড়েছে। সর্বোপরি আকাশে মেঘ জমতে দেখলেই বা বিদ্যুতের তাঁরে বৃষ্টির ফোটা পড়লেই বিদ্যুৎ চলে যায়। আবার বিদ্যুৎ থাক বা না থাক মাস শেষে মোটা অংকের বিদ্যুৎ বিল ধরিতে দিতে ভুল করেনা কর্তৃপক্ষ। যদিও বিদ্যুৎ না থাকার উপর নির্ভর করে বিদ্যুতের ব্যবহার। সরাইল উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি হাজী ইকবাল হোসেন বলেন, আসছে পবিত্র রমজান মাসে তারাবী,সেহরী ও ইফতার এমন অবস্থা হলে মানুষের কষ্ট হবে। এর আগে সরাইলের বিদ্যুতের অবস্থা অনেক ভালো ছিল। শুনছি এখন নাকি নতুন প্রকৌশলী আসছে তিনি কি করছে কিছু বুঝতে পারছিনা। তিনি এসময় আরো বলেন,এখন সময় চলছে বিদ্যুতের আসা-যাওয়া খেলা। বিদ্যুৎ বিভাগের এই উদাসীনতার কারণে উপজেলাবাসীকে অসহনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে দিনে-রাতে কয়েকশো বার বিদ্যুৎ আসা যাওয়ার ফলে। তারপরও বিলের সময় তারা গুনবে দ্বিগুণ বিল।

এদিকে বিদ্যুতের গ্রাহক ইউনুস মিয়া বলেন, প্রত্যেক সময় বিদ্যুতের ঘন- ঘন আসা-যাওয়ায় এই অবস্থায় ব্যবসা বাণিজ্যে মান্দাভা নেমেছে।সরাইলের বিদ্যুতের ঘন-ঘন যাওয়া আসার ফলে অতিষ্ঠ্য হয়ে উঠছেন উপজেলাবাসী।ফোন দিলেই সেই পুরনো ৩৩ কেভি লাইনের দোহাই দেয়া হয়।

১ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সরাইল উপজেলা প্রশাসন পাড়া’য় গেলে উপজেলার বিভিন্ন অফিসের কর্মকর্তারা চাপা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমরা সরকারি চাকরি করি, কি বলব একতো গরম, তার উপর ঘন-ঘন বিদ্যুৎ আসা যাওয়ার ফলে অফিসের কাজকর্ম করা যায় না। এসময় একজন কর্মকর্তা বলেন, স্যার সরাইলে বিদ্যুতের যে হারে আসা যাওয়া করছে এযেন ভেলকি খেলা??
সরাইল উপজেলা পরিষদ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোকেয়া বেগম বলেন, ঘন ঘন বিদ্যুৎ আসা- যাওয়া ফলে গরমে মানুষের কষ্ট হচ্ছে। সরাইল বিদ্যুৎ বিভাগের প্রকৌশলীর সাথে এ অবস্থার জন্য কালকে কথা বলবো।
এ ব্যাপারে সরাইল বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের প্রকৌশলী সামির আসাব বলেন, ঝড় বৃষ্টিতে বিদ্যুতের খুঁটি( পিলার )পড়ে যাওয়ার কারণে বিদ্যুৎ সরবরাহে সমস্যা হচ্ছে। লাইনের উপরে গাছ রয়েছে। গাছ কাটার কাজ কাল থেকে শুরু করব। বিদ্যুতের কোন প্রকার সমস্যা হবে না।

সরাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফুল হক মৃদুল বলেন, বিদ্যুতের ঘনঘন আসা-যাওয়ায় সাময়িক সমস্যা হচ্ছে। এখন ঝড় বৃষ্টির সময় বিদ্যুতের তাঁরের উপর গাজ রয়েছে।কাল থেকেই লাইনের কাজ করবে আশা করি এ সমস্যা আর থাকবে না।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর