সরাইলে’র একটি খালে’র নাম আমরা দখল করেছি

প্রকাশিত: ২:৩৮ অপরাহ্ণ , ১ এপ্রিল ২০২১, বৃহস্পতিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 3 weeks আগে

মো. তাসলিম উদ্দিন সরাইল ( ব্রাহ্মণবাড়িয়া)

গণমাধ্যমসহ পরিবেশবাদী সংগঠন সরাইল উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায় একাধিক বার সরকারি খাল উদ্ধারে আলোচনায় হলেও আবার নতুন করে খাল ভরাটের অভিযোগ উঠেছে।
সরাইলের প্রধান খালের পরিচয় অনেকেই এভাবে বলে সরাইলের মুখে মুখে যে আমরা একটু ভরাট করেছি সেই খালটি নাকি। গতকাল খালের পারের এক ব্যক্তি বলে আমরা খালে একটু গেলে সবাই বলে আমরা নাকি খাল দখল করেছি। এখন এলাকাবাসী মুখে মুখে আমরা সরাইলের খাল দখল করেছি।২৮ মার্চ দিবা গত রাতে জৈনেক খাল দখলকারী ব্যক্তি বলেন, সাংবাদিকরা আমি একটু খালের উপর কোন কাজ করলে তারা রিপোর্ট করে। ইউএনও এ্যাসিলেন্ড বা ভৃমি অফিসের লোকজন এসে কাজ বন্ধ করে বা নানা ভাবে আইনী কথা বলে। আমার সময় আমরার খালে যেতে পারব না। অন্য লোকেরা এসে এখন খালের বুকে দেওয়াল দিচ্ছি তোমাদের চোখে পড়ে না। আমি জানি প্রশাসন কিছু বলবে না কারণ পিছনের বড় ব্যক্তির হাত আছে।
নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন, ভাই সরাইলে’র প্রধান বা উপজেলার প্রবেশপথের খাল হলেও। দখল হইতে হইতে এটার এমন অবস্থা হয়েছে। কালের সাথে নাম পরিবর্তন হয়ে “এখন আমরা খাল দখল করেছি”
তিনি বলেন, সবার চোখের সামনে দখল হচ্ছে তার কোন প্রতিকার যখন নেই, তখন আমরা বলি এই খালের নাম আমরা দখল করেছি?এই সরকারি খালটি দখল হওয়ার কারণে সরাইল সদরের চার-পাঁচটি গ্রামের মানুষ পানি বন্দী হয় একটু বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতা প্রধান সড়কে হাঁটু পানি লাগে। গতকাল রাতের বৃষ্টিতে অন্নদার মোড়ে পানি নিষ্কাশন না থাকায় হাঁটু পানি হলে পথচারীরা অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।এখন বর্ষার সময় প্রতিদিনই এই দৃশ্য দেখতে হবে। আপনার মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, আমাদের দখলকৃত খালটি উদ্ধার হবে কবে??
এই ব্যাপারে সরাইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আরিফুল হক মৃদুলএ প্রতিনিধিকে বলেন,সরকারি খাল কেউ দখল করতে পারবে না। খাল দখলের কথা শুনে ভূমি অফিসের লোকজন কে পাঠিয়েছি। সরকারি খাল দখল বা নির্মাণ কাজ করে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর