রক্ষক যখন পরিণত হয় ভক্ষকে!

প্রকাশিত: ৯:৩৫ অপরাহ্ণ , ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শুক্রবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে
নারী নির্যাতন
ছবি - প্রতিকী

জহির রায়হান : নবীনগরে কলেজ পড়ূয়া বেশ কিছু ছাত্রী নিয়ে মেয়েদের নিরাপত্তার জন্য স্যাভ দা সিস্টার নামে একটি সংগঠন করা হয়। তবে ছাত্রীদেরকে নিরাপত্তার বেষ্টনীতে রাখার দায়িত্ব নিয়ে যিনি (সভাপতি) এই সংগঠনটি করেছেন, তিনি নিজেই নিয়ম বহির্ভূত অসামাজিক কার্যকলাপে নিজেকে জড়িয়ে রক্ষক হয়ে ভক্ষকের পরিচয় দিয়েছেন।

সম্প্রতি এমনই এক অভিযোগ দিয়েছেন নবীনগর পৌর এলাকার জল্লা গ্রামের কলেজ পড়ূয়া এক ছাত্রী। তিনি নিজেও এই সংগঠনেরই সিস্টার। ওই ছাত্রী তার লালসার স্বীকার হন।

গত বুধবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত এক অভিযোগের মাধ্যমে জানান দিয়েছেন ওই ছাত্রী। সেখানে বলা হয় স্যাভ দা সিস্টার সংগঠনের সভাপতি তার সাথে অনৈতিক কাজ করেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সংগঠনের সভাপতি নেয়ামত উল্লাহ বলেন, একটি কুচক্রী মহল আমার সংগঠনকে নিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে। মেয়েটির সাথে আমার সম্পর্ক রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারী) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম অভিযোগ প্রাপ্তি স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সহকারি কমিশনার (ভূমি) ইকবাল হাসানকে প্রধান করে এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি করে দ্রুত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উল্লখ্য, উপজেলার কালঘরা গ্রামের বোরহান উদ্দিনের ছেলে নেয়ামত উল্লাহ এলাকার কলেজ পড়ূয়া বেশ কিছু ছাত্রী নিয়ে মেয়েদের নিরাপত্তার জন্য স্যাভ দা সিস্টার নামে একটি সংগঠন করেন। এলাকার বেশ কিছু প্রভাবশালী ব্যাক্তিকে ওই সংগঠনের উপদেষ্টা বানিয়ে সরকারী বেসরকারী বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সিস্টারদের নিয়ে অংশগ্রহন করে রীতিমতো ফেমাস হয়ে উঠেন। তিনি এ সংগঠনের ব্যানারে সিস্টারদের নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রশিক্ষণ ও ভ্রমন করে থাকেন।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর