ভূল অস্ত্রপাচারে চিকিৎসক বাম কিডনির পাথর অপসারণে কাটলেন ডান পাশ

প্রকাশিত: ৯:৫৩ অপরাহ্ণ , ৯ জুলাই ২০২১, শুক্রবার , পোষ্ট করা হয়েছে 2 weeks আগে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক শফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে ‘ভুল অস্ত্রোপচার’ করার অভিযোগ উঠেছে। রোগীর বাম কিডনির পাথর অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে অপসারণ করতে গিয়ে ডান পাশ কেটেছেন ওই চিকিৎসক।

তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট। ভুক্তভোগী রোগী আজিমুল খান (৪০) ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার দক্ষিণ জাঙ্গাল গ্রামের বাসিন্দা।

জানা গেছে, আজিমুলকে জেলা শহরের জেল রোডস্থ এক বেসরকারি হাসপাতালে ডা. শফিকুল ইসলামকে দেখানো হয়। পরীক্ষানিরীক্ষার পর আজিমুলের বাম কিডনিতে পাথর রয়েছে এবং অস্ত্রোপচার করে পাথর অপসারণ করতে হবে বলে জানান ডা. শফিকুল।

দিনমজুর আজিমুলের স্ত্রী বেসরকারি হাসপাতালে অস্ত্রোপচার করানোর টাকা নেই জানিয়ে স্বামীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করার জন্য ডা. শফিকুলকে বলেন। পরে ১৯ জুন আজিমুলকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর ২৭ জুন আজিমুলের অস্ত্রোপচার করেন ডা. শফিকুল।

বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) দুপুরে আজিমুলের স্ত্রী খালেদা জানান, ওই দিন সকাল ৮টার দিকে অস্ত্রোপচারের জন্য আজিমুলকে ওটিতে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু দুপুর ১টা বেজে গেলেও আজিমুলকে বের না করা হলে আমরা মনে করি, আজিমুল হয়তো ওটিতে মারা গেছেন।

পরবর্তীতে ওটি থেকে বের হওয়ার পর আজিমুল জানায়, চিকিৎসক পাথর অপসারণের জন্য বাম পাশে না কেটে ডান পাশ কেটে ফেলেছিল। এরপর বাম পাশ কাটে। ডান পাশ কাটার ব্যাপারে ডাক্তারকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, এটি দুর্ঘটনা। দুই পাশ কাটার জন্য আজিমুলের হাঁটাচলা করতে সমস্যা হচ্ছে বলে জানান খালেদা।

‘ভুল অস্ত্রোপচারের’ অভিযোগের ব্যাপারে বক্তব্য জানতে ডা. শফিকুল ইসলামের মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. ওয়াহীদুজ্জামান বলেন, এমন একটি ঘটনাটি শুনেছি। এ বিষয়ে ভালো করে জেনে এবং কাগজপত্র দেখে তারপর বলতে পারব।

মোঃনিয়ামুল ইসলাম আকন্ঞ্জি
ব্রাহ্মণবাড়িয়া।
৯/৭/২০২১
০১৭৭৯৬৬০৬৯১

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর