অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে বাংলাদেশ এখন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন

দুঃস্বপ্ন ভুলে বীরের বেশে হাসল বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ১:১৯ অপরাহ্ণ , ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, সোমবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে
CWC19

কালের বিবর্তন ডেস্ক : বাংলাদেশের প্রতিটি ঘরে ঘরে আজ ঈদের আনন্দ। বাঁধ ভাঙ্গা খুশির জোয়ার আর বিজয়ের উল্লাসে যেন মেতেছে গোটা দেশ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক, টুইটারে শুধু অভিনন্দন আর শুভেচ্ছা। চ্যাম্পিয়ন, চ্যাম্পিয়ন চিৎকারে প্রকম্পিত পচেফস্ট্রুমের আকাশ-বাতাস। উৎসবের সেই ঢেউ মহাদেশ পেরিয়ে মুহুর্তেই ছড়িয়েছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাসহ গোটা দেশ। আর এই আনন্দ, বাঁধ ভাঙ্গা খুশির জোয়ার ও বিজয়ের উল্লাস এনে দিয়েছে আমাদের যুবারা।

রবিবার দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে টুর্নামেন্ট ইতিহাসের সফলতম দল ভারতকে তিন উইকেটে হারিয়ে নতুন এক ইতিহাস লিখল বাংলাদেশের যুব দল। এই প্রথমবারের মত বিশ্বকাপ জিতলো বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ক্রীড়া ইতিহাসে রঙ্গিনতম অধ্যায়টিতে নাম লিখিয়েছেন আকবর আলীরা। জাতীয় দল যে সাফল্য পায়নি সেটাই করে দেখালো যুবারা। অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে বাংলাদেশ এখন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। ক্রিকেট ইতিহাসের এক ব্রাহ্মমুহূর্তে ভারতকে ডিএল মেথডে ৩ উইকেটে হারিয়ে যুব ক্রিকেটের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট এখন বাংলাদেশের।

২৩ বছরের পরিক্রমা। সেই ১৯৯৭ সালে নিজেদের প্রথম অফিসিয়াল ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। তারপর একটু একটু করে এগিয়ে যাওয়া। এই এগিয়ে যাওয়ার পথে একের পর এক আসে ভারত-বাধা। বড়-ছোট আসর মিলিয়ে ৫০ ওভারের ক্রিকেটে এই ম্যাচের আগে ২২ বার ভারতীয় যুবাদের মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ। যেখানে মাত্র ৩টিতে জয় ছিল লাল-সবুজের পতাকাবাহীদের। বাকি ১৯ ম্যাচের ১৮টিতে ভারতের কাছে হার মেনেছেন যুবারা।

বড়দের কষ্টটা যে আরও বেশি। ৩৬ ওয়ানডেতে মাত্র ৫ জয়। বাকি ৩১ ম্যাচের ৩০টিতে হার ও ১টি ফলহীন। চার-ছক্কার ক্রিকেটে আরও বাজে অবস্থা। ১১ বারের দেখায় মাত্র ১ জয়। সেইসঙ্গে বড় আসরেও ছিল বাংলাদেশের ভারত-দুঃখ। ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টারে ভারতের কাছে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয় বাংলাদেশ জাতীয় দলের। তার চেয়ে বড় দাগ ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। সেবার সেমিতে এই ভারতে কাটা পড়ে বাংলাদেশ। এরপর এশিয়া কাপের ফাইনালে দু-দু’বার ভারতের কাছে হেরে শিরোপা হাতছাড়া করে টাইগাররা। প্রথমবার ২০১৬, পরেরবার ২০১৮ সালে আরব আমিরাতে দুর্দান্ত পারফর্ম করেও শেষ পর্যন্ত ভারতের কাছে হেরে শূন্য হাতে বাড়ি ফিরতে হয় টিম বাংলাদেশকে।

এমন দুঃসহ তিক্ততা নিয়ে যখন বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে নামে বাংলাদেশ, তখন কি আর স্বস্তিতে থাকা যায়। প্রোটিয়াদের মাটিতে তারই ছায়া দেখা গিয়েছিল। ক্ষণে ক্ষণে বদলে যাওয়া ম্যাচের দৃশ্যে ফুটে উঠেছিল আরেকটা আক্ষেপের চিত্র, আরেকটা হৃদয়ভাঙার আর্তনাদ। যাক, শেষ পর্যন্ত সব দুঃস্বপ্ন ভুলে বীরের বেশে হাসল বাংলাদেশ, হাসল ১৬ কোটি জনতা। জয় হলো বাংলাদেশের, জয় হলো ক্রিকেটের।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর