জীবন আজ বন্ধী করোনাভাইরাসে-আকাশ শুধু শান্তিময়

প্রকাশিত: ২:১৮ পূর্বাহ্ণ , ৬ এপ্রিল ২০২০, সোমবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে
ছবিতে শত কষ্টের মাঝেও আকাশের দিকে তাকিয়ে নিঃশ্বাস নিচ্ছে মেহজাবিন।

মোঃ তাসলিম উদ্দিন সরাইল প্রতিনিধিঃ জীবনের গল্পগুলো হয় কখনো হররর মুভির মতো লোমহর্ষক আবার কখনো হয় রোমাঞ্চকর। কখনো সুখকর আবার কখনো ভয়ংকর। প্রতিটি মুহূর্ত অভিজ্ঞতায় সমৃদ্ধ। অনেকটা বৃষ্টির ফোটার মতো। ফুটে পদ্ম। গাসে থাকে শিশিরভেজা।জীবনের গল্পগুলো জমাট বাঁধা রক্তের মতো। জটিল এক সমীকরণের মাধ্যমে রক্ত যেমন জমাট বাঁধে, অভিজ্ঞতাগুলো তেমনি মস্তিষ্ক নামক জায়গায় জমাকৃত হতে থাকে জটিল এক সমীকরণে।

মানুষের জীবন বিভিন্ন অধ্যায়ে বিভক্ত। মানুষের অধ্যায় হয় সুখকর আবার কোনো কোনো অধ্যায় হতে পারে অসহনীয় নিরবধি দুঃখে রচিত। হাত-পা থাকা সত্ত্বেও তা কোনো কাজে আসে না।জীবনের কিছু অধ্যায়ে।আজ বিকেলে খেলার সাথী না পেয়ে আকাশের দিকে তাকিয়ে আছে নিজ খুশিতে ছয় বছরের মেহজাবিন।আবার এই দুই সুখ-দুঃখের অনুভূতির সংমিশ্রণে অনেক সময় ঘোলাটে হয়ে যেতে পারে। একজন মানুষের জীবনের অভিজ্ঞতাগুলো অন্যদের জন্য আনন্দ অথবা দুঃখের দৃশ্য বয়ে নিয়ে আসে। অন্যের দুঃখে আমরা দুঃখিত হই আবার অন্যের আনন্দে আমরা আনন্দিতও হই।একমাত্র মানুষ নামক প্রাণীই অন্যের সুখ দুঃখ ভাগ বণ্টন করতে পারে। করোনা আতঙ্কিত হলেও মানুষের ভালোবাসা কমেনী।আর কোনো প্রাণী করতে পারে না।

অনেক সময় জীবনের ঘটে যাওয়া দৃশ্যগুলো চোখের সামনে বাস্তবের মতো ভেসে ওঠে। আমরা শিহরিত হই অন্যজনের অভিজ্ঞতা শুনে। করোনা ভাইরাস বিশ্বের মানুষের জন্য নতুন অভিজ্ঞতা।আবার কখনো এ রকম মনে হয় যে,জীবনের গল্পগুলো যেমন হয় রোমাঞ্চকর, তেমনি হয় রোমহর্ষক। মহামারী করোনাভাইরাসের আগ্রাসী থাবায় থমকে গেছে দেশ। স্তম্ভিত হয়ে আছি পৃথিবী।প্রত্যেকটা মানুষ হোম কোয়ারেন্টাইন পালন করছে।ণতারই অংশ হিসেবে ছোট মেহজাবিন ঘরের বাহিরে খেলা করতে পারছে না।

ছাদে উঠে মুক্ত আকাশের দিকে তাকিয়ে কি যেন বলছে তার সৃষ্টিকর্তার কাছে। পৃথিবী এখন লকডাউনে থাকলেও সৃষ্টিকর্তার দান প্রকৃতি আছে বড়ই খোশমেজাজে। মানুষের সৃষ্টির কলকারখানার ধোঁয়া। আকাশে উঠছে না বিমান। শব্দহীন পৃথিবী রাজত্ব চলছে সৃষ্টিকর্তার। শত কষ্টের মাঝেও আকাশের দিকে তাকিয়ে নিঃশ্বাস নিচ্ছে মেহজাবিন।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর