জন দুর্ভোগের আরেক নাম পলাশবাড়ী পৌরসভা

প্রকাশিত: ৬:৩৪ অপরাহ্ণ , ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শুক্রবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে
ছবি - কালের বিবর্তন

আশরাফুল ইসলাম, গাইবান্ধা প্রতিনিধি : দুর্ভোগের আরেক নাম পলাশবাড়ী পৌরসভা। এই পৌরসভার রাস্তাগুলো সংস্কারের অভাবে পৌরবাসীর দুর্ভোগের যেন অন্ত নেই। ড্রেনেজগুলোর অবস্থাও নাজুক। ঝড়বৃষ্টি ছাড়াই ড্রেনের ময়লা পানি হরহামেশাই রাস্তাগুলো সেঁতসেঁতে হয়ে থাকে। তার উপর সামান্য বৃষ্টি হলে তো আর কোন কথাই নেই। তবে এসব সমস্যার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদেরকেই দায়ী করেছেন পৌরবাসী।

সরেজমিনে গিয়ে ও পৌরবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, কেন্দ্রীয় মসজিদের রাস্তা, পলাশবাড়ী পিয়ারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, উপজেলা আওয়ামীলীগ অফিসের মূলগেট, বঙ্গবন্ধু মার্কেট ও পিয়ারী মার্কেটের সামনের সড়কগুলোর বেহাল দশা। রাস্তার কার্পেটিং উঠে ছোট বড় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। এসব রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে প্রতিদিনই ঘটছে ছোটবড় দুর্ঘটনা। উপজেলার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গসহ সকলের যাতায়াত থাকলেও এই রাস্তাটি দেখার যেন কেউ নেই!

পলাশবাড়ীতে উপজেলা সড়কে দূষিত ড্রেনের পানি প্রতিকার চায় ভোক্তভোগী সাধারণ জনগণ ও অত্র এলাকার ব্যবসায়িগণ, সুশিল সমাজ, মসজিদের মুসল্লিগণ।

গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলা পরিষদের প্রবেশ দ্বারে ড্রেনেজ ব্যাবস্থা অকার্যকর হয়ে দূষিত পানিতে সরবর । এই গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি দিয়ে পলাশবাড়ীর গুরুত্বপূর্ণ ব্যাক্তিদের চলাচলে উপজেলা কার্যক্রম স্বচল হলে বিষয়টি নিয়ে কেউ সমাধানে কাজ করছেন না । পৌরবাসীর দূর্ভোগ রোধে প্রয়োজনীয় উন্নয়নের প্রাপ্ত বরাদ্দ অপরিকল্পিত উচ্চবিলাসী নামমাত্র উন্নয়নের উপজেলা পরিষদের অভ্যান্তরে পৌর সভার প্রথম বরাদ্দের অর্থদিয়ে উপজেলা পরিষদের ভিতরে সাজানো কাজ চলমান রেখেছেন যেখানে অনিয়মে স্তুপ সাজিয়েছে সংশ্লিষ্টরা। এ যেনো লুটপাটের হাট বাজারে আমরা ক্রেতা বিক্রেতা আমারটাই বেশী ভালো।

পলাশবাড়ী-গাইবান্ধা সড়ক উন্নয়নকল্পে ড্রেনেজ ব্যাবস্থা ছিন্ন হওয়ায় উপজেলা রোডস্থ ড্রেনটি মূল ড্রেনের সঙ্গে বিছিন্ন হয়ে পরে। এমতাবস্থায় উপজেলা রোডস্থ উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ অফিসে যাওয়ার একমাত্র রাস্তাটি ইদানিং ড্রেনটিতে পানি এসে রাস্তায় উপচে পড়ছে। এই ড্রেনটি আনুমানিক ৫০ মিটার দৈর্ঘ হবে। গুরুত্বপূর্ণ এ স্থানটিতে পিয়ারী পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রবেশ পথ,উপজেলা আওয়ামীলীগ এর দলীয় কার্যালয়,উপজেলা টাউন হল,সদর শহীদ মিনার, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ,ডায়াবেটিক সমিতিসহ সরকারী সমস্ত অফিসে যাওয়ার এক মাত্র পথ। পানি নিস্কাশন ব্যবস্থা পুর্নাঙ্গ না থাকায় মসজিদের নোংরা দুষিত দুঃগন্ধ পানি রাস্তার উপর জমাট হয়ে জন দূভোগের সৃষ্টি হয়েছে ব্যাপক ভাবে।

রাস্তায় মোটামুটি ৪০ মিটার এলাকায় দীর্ঘক্ষন জলাবদ্ধতায় ডুবে আছে । ফলে এর মাঝেই সরকারি মডেল সরকারি প্রাথমিক বালিকা স্কুল সহ বিভিন্ন স্কুলের কমলমতি ছাত্র /ছাত্রী জেলা ও উপজেলা দাপ্তরিক প্রধান সহ জনসাধারণ মাথা নিচু করে এ রাস্তা পাড়াপাড় হয়।

বর্ষাকালে ব্যাপক দূর্ভোগ কাটিয়ে এখন বর্ষা না থেকেও থেকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এই শুষ্ক মৌসুমে এসেও এ দূষিত ও দুর্গন্ধ যুক্ত পানি এ ড্রেনটিতে এসে রাস্তায় উপচে পড়ছে যা দেখেও না দেখার ভান করছে সংশ্লিষ্ট কর্তাব্যক্তিরা ।

অত্র পৌর শহরের দূষিত পানি প্রবাহের পথ তৈরীতে স্থায়ী দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা করে পূর্ণাঙ্গ ড্রেনেজ ব্যবস্থা তৈরি করতে সন্মানিত নব পৌর প্রশাসক ও উপজেলা প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরাসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের আশুদৃষ্টি কামনা করছেন স্থানীয় সচেতন মহল।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর