গাইবান্ধা পলাশবাড়ীতে অবৈধভাবে গড়ে উঠা ৫টি ইটভাটায় জরিমানা ৯ লক্ষ টাকা

প্রকাশিত: ৬:৫৯ অপরাহ্ণ , ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে
ছবি - কালের বিবর্তন

আশরাফুল ইসলাম, গাইবান্ধা প্রতিনিধি : পরিবেশ ও মাটি আইনের তোয়াক্কা না করে গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলায় যত্রতত্র ইটভাটা গড়ে উঠেছে অবৈধ ইটভাটা ।উপজেলা জেলা জুড়ে ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে এসব নিত্য নতুন ইটভাটা । অবৈধভাবে গড়ে উঠা ইটভাটা গুলো বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনে স্থানীয়দের দীর্ঘদিনের দাবীর প্রেক্ষিতে গাইবান্ধা জেলা প্রশাসকের লাইসেন্স ও পরিবেশের ছাড়পত্র ছাড়াই ইটভাটা স্থাপনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৫ টি ইটভাটায় জরিমানা করা হয় ৯ লাখ টাকা। উপজেলার এলাকায় পরিবেশ অধিদপ্তরের দিনব্যাপী অভিযান চালিয়ে ৫টি অবৈধ ইটভাটায় পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ও অনুমোদন না থাকায় আগুন দিয়ে নিভিয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

আজ ৫ ফেব্রয়ারী ইটাভাটায় অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ মেজিস্ট্রেট মেজবাউল হোসেন। পরিবেশ অধিদপ্তরের ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ)আইন, ২০১৩ (সংশোধিত ২০১৯ এর ১৪ ধারায় পরিবেশগত ছাড়পত্র ও লাইসেন্স ব্যতিত ইট পোড়ানোর কারনে ওই ৫ টি ইটভাটার মালিককে ৯ লক্ষ টাকা জরিমানা ও ফায়ার সার্ভিসের সহায়তায় ইটভাটার আগুন নিভিয়ে দেয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ অভিযানের নের্তৃত্ব দেন রংপুর বিভাগীয় পরিবেশ অধিদপ্তর কার্য্যালয়ের সহকারী পরিচালক মিহির লাল সরদার। এসময় অভিযান টিমে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা ফায়ার সার্ভিসের উপ- সহকারী পরিচালক আমিনুল ইসলামসহ ফায়ার সার্ভিসের কর্মী এবং আইন শৃংখলার কাজে সহযোগিতায় ছিলেন পলাশবাড়ী থানার পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা।

এ অভিযানে উপজেলার ভগবর্তীপুর এলাকার ১. মোঃ সাইদ হাসানের মেসার্স এস এস ব্রিকসের ২ লাখ টাকা,নারায়ণপুর এলাকার ২.মোঃ শরিফুল ইসলামের মেসার্স এম এস ব্রিকসের ২ লাখ টাকা,হিজলগাড়ী এলাকার ৩. গোকুল চন্দ্র রায়ের মেসার্স মা ব্রিকসের ২ লাখ টাকা, পশ্চিম গোপীনাথপুর এলাকার ৪. গোপাল চন্দ্র রায়ের অন্য আরেকটি ভাটা মেসার্স মা ব্রিকসের ২ লাখ টাকা,পশ্চিম গোপীনাথপুর এলাকার ৫.মোঃ সাইদুর রহমানের মেসার্স এম এস এম ব্রিকসের ১লাখ টাকা করে ৫টি ইটভাটা থেকে সর্বমোট ৯ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। প্রস্তুতকৃত কাঁচা ইট পানি দিয়ে নষ্ট করে দেওয়া হয়।

জনবসতিহীন ফাঁকা জমিতে ইটভাটা তৈরির নিয়ম থাকলেও সকল আইন ভঙ্গ করে কৃষিজমি, জনবসতিপূর্ণর পাশেই এ সব ইটভাটা গড়ে উঠেছে। এগুলো ছাড়াও উপজেলার অন্যান্য ইটভাটা গুলো এককই ভাবে অবৈধ কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে উপজেলার সচেতন মানুষের দাবী লোকদেখানো দায়সারা ভাবে হাতে গনা কয়েকটি ইটভাটায় অভিযান নয় সকল অবৈধ ইটভাটায় অভিযান পরিচালনা করে অবৈধ ইটভাটা গুলো বন্ধ করা হোক।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর