উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে

কসবায় সংঘর্ষে আহত শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ

প্রকাশিত: ৬:২০ অপরাহ্ণ , ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে
প্রতিকী ছবি

কসবা প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার গোপীনাথপুর শহীদ বাবুল উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে সংঘর্ষে গুরুতর আহত চার পরীক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেছে।

আজ মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) অসুস্থতা নিয়েই তারা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে তাদের আলাদা কক্ষে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়।

আহত পরীক্ষার্থীরা হলো তন্নি আক্তার, সোনিয়া আক্তার,লিজা আক্তার ও আসিফ খান। কেন্দ্রে সকল প্রকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতাযেন রাখা হয়।

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক এমপি’র নির্দেশনায় আহত পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষার ব্যবস্থা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ ঊল আলম।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ উল আলম জানান, গত ৯ ফেব্রুয়ারির অনাকাঙ্খিত ঘটনার শিকার আহত শিক্ষার্থীরা যাতে করে পরীক্ষায় অংশগ্রহন করতে পারে সে চেষ্টা অব্যাহত ছিলো। গুরুতর আহত হয়েও পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে তারা যেন শান্তিপুর্ন পরিবেশে পরীক্ষা দিতে পারে সে ব্যবস্থা করা হয়েছে। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে কোন প্রকার অসুস্থতাবোধ হলে তাৎক্ষনিক চিকিৎসা দেয়ার জন্য ২ জন ডাক্তার রাখা হয়েছে। আইনমন্ত্রী মহোদয়, জেলা প্রশাসক ও কুমিল্লা বোর্ড পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের নির্দেশনা ছিলো আহত শিক্ষার্থীদের যেন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার ব্যবস্থা করা হয়। তিনি পরীক্ষা শুরু থেকে পরীক্ষার শেষ অবধি কেন্দ্রে উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য গত ৯ ফেব্রুয়ারি উপজেলার গোপিনাথপুর কেন্দ্রে নকল সরবরাহে সহায়তা না করায় সৈয়দাবাদ এএস মনিরুল হক উচ্চ বিদ্যালয় ও গোপিনাথপুর শহীদ বাবুল উচ্চ বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থীদের মাঝে সংঘর্ষ বাধে । এতে এএস মনিরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের ৪ পরিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়।

আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন। সেখানে আহতদের প্রথমে ঢাকায় প্রেরন করার কথা বলা হলেও পরে সদর হাসপাতালেই তাদের চিকিৎসা করেন। আহতরা কিছুটা সুস্থ হলেও পুরোপুরি সুস্থ হতে তাদের আরো সময় লাগবে বলে জানায় আহতদের অভিভাবকগন।