ওসি মোহাম্মদ লোকমান হোসেনের হস্তক্ষেপে

কসবায় বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেলো ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী হালিমা

প্রকাশিত: ৭:২৮ অপরাহ্ণ , ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে

কসবা প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়া কসবায় অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ লোকমান হোসেনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেলো খাড়েরা ইউনিয়নের খাড়েরা গ্রামের তোতা মিয়ার মেয়ে হালিমা।

কসবা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ লোকমান হোসেন কালের বিবর্তনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে খাড়েরা গ্রামের তোতা মিয়ার মেয়ে ও খাড়েরা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রী হালিমার (১৩) সাথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সুলতানপুর গ্রামে বিবাহের দিন ধার্য্য ছিল। তবে ওসির হস্তক্ষেপে বরযাত্রী আসার আগেই বাল্য বিয়েটি বন্ধ হয়ে যায়।

এ ব্যাপরে হালিমার পিতা তোতা মিয়া ও ভাই ইউনুস মিয়া তাদের ভুল স্বীকার করে জানান, আমি ভুল বুঝতে পেরেছি এবং ওসি সাহেবসহ সকল পুলিশকে ধন্যবাদ জানাতে থানায় এসেছি। আমার মতো আর যেন কেউ সন্তানকে বাল্যবিবাহ দিয়ে এমন ভুল না করেন প্রতিটি অভিভাবকের প্রতি আহ্বান জানান।

এ ব্যাপারে কসবা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ লোকমান হোসেন কালের বিবর্তনকে জানান, এলাকাবাসী বাল্য বিবাহের বিষয়টি কসবা থানায় জানালে আমি সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বৃহস্পতিবার কনের বাড়িতে হাজির হই। একইসাথে বাল্য বিবাহের কুফল সম্পর্কে তাদেরকে ধারণা দিয়ে বিয়ে বন্ধের নির্দেশ দেই।

তিনি আরো জানান, পরদিন শুক্রবার বিবাহের দিন জুমার নামাজ শেষে কনে হালিমাসহ তার বাবা ও বড় ভাই থানায় এসে তাদের ভুল বুঝতে পেরে অনুতপ্ত হয়।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর