কর্মহীন “ক্ষুধার্ত মানুষ” আছি কি সুখে না হয় দুখে!

প্রকাশিত: ১১:২৮ অপরাহ্ণ , ২ এপ্রিল ২০২০, বৃহস্পতিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে

মোঃ তাসলিম উদ্দিন সরাইল প্রতিনিধিঃ আজ কবি’র কথা মনে পরে, “নিজেকে চিনিনি বলে, চিনিনি ঐ মহা স্রষ্টাকে তাইতো রাখিনি তার কাছে ওয়াদাকৃত কথাকে, পৃথিবির সব মাখলুকের মোহের তাকাদা আমাকে বিরত রেখেছে করিতে স্রষ্টার সেজদা । জীবন ঢেকে আছে দুঃখের এক আস্ত চাদরে মন ঢুবে আছে কষ্টের এক গহীন সাগরে, পেট ভরে গেছে গ্লানির লোনা জলেভীরবে না জীবনতরী কভু আর, সত্য-সুখের রঙ্গিন কুলে।”

মধ্যবিওরা বড় কষ্টে ! নিম্ন মধ্য আয়ের মানুষ যাবে কোথায়-? না বলতে পারে, হাত বাড়িয়ে না “নিতে পারে। কথায় আছে, হাতে কালি কপালে আলিক্কি, এখন মধ্যবিওদের জন্য চোখে সরম মধ্যে পেট খালি? গতকাল এমন দৃশ্য হাসপাতাল মোড়ে জেলা পরিষদের যাত্রী ছাউনিতে সুয়ে আছে এক যুবক। কর্মহীন মধ্য বিওরা আছে বড়ই কষ্টে, তাদের প্রশ্ন? আমরা যাব কোথায়? তারা তাদের পরিচয় বলতে লজ্জায় মুখ লোকায়। আমি চায় শুধু  আমি না, সবাই এগিয়ে আসুন, দেশটাকে বাঁচান, দেশের মানুষ গুলোকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন। আমি যদি খায়, আমার সাথে পাশের বাড়ির মানুষ ও খেয়ে আনন্দে ঘুমাবে। এটাই হোক আমাদের চিন্তা চেতনা। মানুষ কি আসলে কেউ কারোর নয়-শুধুই কি পরিচয়। অভিনয় বাকী সবটাই। মধ্যবিত্ত পরিবারের অনেকেই জানিয়েছেন, আমাদের খবর কেউ রাখে না! আমরা মধ্যবিত্ত কর্মহীন ক্ষুধার্ত মানুষ? আছি কি সুখে না হয় দুখে।সৃষ্টিকর্তা আপনার দেওয়া। আপনি ছাড়া উপায় নেই !

মহিলা সংরক্ষীত আসনের এমপি, উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম শিউলি আজাদ বলেন, “নিম্ন শ্রেণীর মানুষদের সাহায্যার্থে সবাই এগিয়ে আসছে কিন্তু আরেকটি শ্রেণী ক্ষুদার্থতাকে নিত্য সংগী হিসেবে মেনে নিয়ে খেয়ে না খেয়ে  দিন গুনছেণ পরিস্থিতি পাল্টে যাবার। সত্য বলতে মধ্যবিত্তদের কথা আমাদের ভাবাই বা কে? কেননা তারা যে নিরবে নিবৃত্তে ধুকছে, ঘন কোয়াশার চাদরে তাদেরকে না লুকোতে দিয়ে সকলের কর্তব্য হয়ে উঠেছে মধ্যবিত্তদের ও সহযোগিতা করার।”

মন্তব্য লিখুন