করোনায় কষ্টে সরাইলের নিম্ন আয়ের মানুষ ” অহন বাচবো কেমনে?

প্রকাশিত: ৬:৫৬ অপরাহ্ণ , ২৭ মার্চ ২০২০, শুক্রবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে

 

মোঃ তাসলিম উদ্দিন সরাইল প্রতিনিধিঃ কয়েক দিন থেকে সরাইলের রাস্তাঘাটে যানবাহন, অটোরিক্সা, রিক্সা, ভ্যান ও মোটাসাইকেল চলাচল অনেকটা কমে গেছে। রাস্তাঘাটে অটোরিক্সা ও ভ্যান তেমন চোখে পড়ছেনা। স্তব্ধ হয়ে আছে জনপথ,করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে দেশব্যাপী। সারাদেশে সরকারের তরফ থেকে সব ধরনের জনসমাগম নিষেধ করা হয়েছে। সকাল- বিকাল প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘরে রাখতে করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোধে সচেতনতার জন্য,জরুরী কোন কাজ ছাড়া আগামী ১৪দিন রাস্তাঘাটে মানুষকে না বেরোনোর জন্য বিশেষভাবে সর্তক করা হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করে প্রচার করা হচ্ছে রাস্তায় বের না হওয়ার জন্য। উপজেলার দোকান ও মার্কেট গুলো একেবারে বন্ধ থাকায় জনশূণ্য হয়ে পড়েছে সরাইল। এতে করে আতঙ্কে নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষরা বিপাকে পড়েছেন। আয় রোজগারের কোন পথ না থাকায় পেটের দায়ে তারা ঘরে থাকতেও পারছেন না। তাই বাধ্য হয়ে ভ্যান নিয়ে রাস্তায় নেমেছেন। শুক্রবার বেলা সাড়ে ৪টায় ভাড়ার আসায় উচালিয়া পাড়ার মোড়ে অপেক্ষা করছিলেন কয়েক জন রিক্সা চালক।তাদের মধ্যেসদর উপজেলার বড্ডা গ্রামের রিক্সা চালক বয়জ্যেষ্ঠ মোঃ সিদ্দিক মিয়া বলেন, কয়েক বছর আগে মাইক্রো গাড়ি দুর্ঘটনা এক পা চলেগেছে, বাড়িতে পরিবারের সদস্য সংখ্যা ৫-৬ জন। প্রতিদিন খাওয়া খরচ টাকা লাগে। কোন সময় রিক্সা ভাড়া চালাই। আর নয়তো অনেকে কাছ থেকে টাকা নিয়ে খেয়ে না খেয়ে সময় কাটে। এক পা আমার নেই, অন্য কোন কাজও করতে পারিনা। কয়েক দিনজ রিক্সা বের করতে পারিনি। এলাকার রোগী খুব করে জোরাজুরি করায় হাসপাতালে নিয়ে এসেছি। ভয়ে ভয়ে গাড়ি চালাচ্ছি। ভাইরাসের কারণে রাস্তাঘাটে গাড়িঘোড়া কম চলছে। মানুষের আনা গোনাও কম। রিক্সা বের করতে পারছিলাম না। কি করে সংসার,অহন বাচবো কেমনে ? এদিকে আতঙ্কিত না হয়ে আগামী দুই সপ্তাহ ঘরে সময় কাটানোর জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে বার বার সচেতন করা হচ্ছে।করোনা আতঙ্কে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর