• জাতীয় বাঞ্ছারামপুর
  • আ.লীগ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার, বিদ্রোহী প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন

আ.লীগ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার, বিদ্রোহী প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন

প্রকাশিত: ৭:৪৬ অপরাহ্ণ , ৯ নভেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 weeks আগে

মোঃনিয়ামুল ইসলাম আকন্ঞ্জি: ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা দৌড়ঝাঁপ করছেন। আবার দলের বিরুদ্ধে প্রার্থী হলে নেওয়া হচ্ছে কঠোর ব্যবস্থা। কিন্তু ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় ঘটেছে উল্টো ঘটনা। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়া এক চেয়ারম্যান প্রার্থী তার মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। ফলে ওই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হতে যাচ্ছেন। এ ঘটনায় জেলায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার সলিমাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন। গত ৪ নভেম্বর এই নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের মনোনয়পত্র যাচাই-বাছাই শেষে তিনজন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। এর মাঝে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মতিন শারীরিকভাবে অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত প্রার্থী মো. হোসেন মিয়াও তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এর ফলে একমাত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জালাল মিয়া বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেওয়া আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মতিন বলেন, আমি অসুস্থ হয়ে পড়েছি। সেজন্য নির্বাচন করতে পারছি না। স্থানীয়ভাবে রাজনৈতিক চাপে ছিলেন কি না এমন প্রশ্নের কোনো উত্তর দেননি তিনি। সলিমাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বাঞ্ছারামপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবু তৌহিদ জানান, মোট তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে আব্দুল মতিন ও হোসেন মিয়া রোববার তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এর ফলে বাকি থাকা এক স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জালাল মিয়া বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর