আশুগঞ্জে অনুমতি নেই এমন প্রাথমিক বিদ্যালয়কেই শিক্ষা কর্মকর্তার সহায়তা

প্রকাশিত: ২:৫৩ অপরাহ্ণ , ৪ জানুয়ারি ২০২০, শনিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 5 years আগে

নিজস্ব প্রতিবেদক : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ বগুইর মডেল স্কুল এন্ড কলেজে নিয়ম বহিভূর্তভাবে প্রাথমিকের শাখা চালু এবং বই দিয়ে সহায়তার অভিযোগ উঠেছে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

সরকারি প্রাথমিকের কেসমেন্ট এরিয়ার ভেতরে প্রাথমিকের শাখাটি চালু করার পর পাশ্ববর্তী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী সংকট দেখা দেয়।

এবছর মাত্র ৮জন ছাত্রছাত্রী ভর্তি হয়েছে বগইর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। কিন্তু ওই স্কুল এন্ড কলেজে প্রাথমিকের শাখা খোলা এবং পাঠদানের অনুমতি যাতে না দেয়া হয় সে ব্যাপারে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ আব্দুল হাফিজ ভূঁইয়া আগেই আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর আবেদন জানিয়েছিলেন।

তাছাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে নতুন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যাতে গড়ে উঠতে না পারে এ ব্যাপারে গত ২৪ জুলাই প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে উপজেলা এবং জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের নজরদারি বাড়ানোরও নির্দেশ দেয়া হয়।

কিন্তু তারপরও ১ জানুয়ারী ওই স্কুল এন্ড কলেজে প্রাথমিকের শাখায় ভর্তি হওয়া ৩০জন শিক্ষার্থীর জন্যে বই সরবরাহ করেছেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল আলিম রানা। তার দাবী, প্রাথমিকের ওই শাখাটি বই পাওয়ার দাবী রাখে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ সাজ্জাদ হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেসমেন্ট এরিয়ার ভিতরে নূতন করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শাখা বা প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপনের অনুমতি দেওয়ার কোন সূযোগ নেই জানালেও বিদ্যালয়টি কিভাবে বই পেল সেটি তার অজানা বলে জানান। বলেন, তাদের বই পাওয়ার কোন সুযোগ নেই। কেন বই দেয়া হলো সেটি আমি জানবো।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর