আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশুর চিকিৎসায় মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাইন ব্যবহারের অভিযোগ

প্রকাশিত: ১:৩৮ অপরাহ্ণ , ২১ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে
ইনসেটে ভূক্তভোগী শিশুটি

রুবেল আহমেদ(বিশেষ প্রতিনিধি):- ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার আখাউড়ায় সোমবার (২০-জানুয়ারী) ৫০ শয্যা বিশিষ্ঠ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ এক শিশুর চিকিৎসায় মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাইন ব্যবহার করা হয়েছে।

জানা গেছে সোমবার বিকেল ৪টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বর্তমানে শিশুটিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে রেফার করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মো. রাশেদুর রহমান।

শিশুটির বাবা ওয়াসিম দস্তগীর জানান, বিজয়নগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের ওয়াসিম দস্তগীরের দেড় বছরের মেয়ে তায়েবা ডায়রিয়া ও বমি হলে, বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে তার মেয়ে তায়েবাকে আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডাক্তার সুমাইয়া জাবিন শিশুটিকে হাসপাতালের মহিলা ওয়ার্ডে ভর্তি করায়।

পরে নার্স রাজিয়া এবং নাজরানা শিশু তায়েবাকে হাসপাতালের নিজস্ব সরকারি মেয়াদোত্তীর্ণ স্যালাইন ‘ডেক্সোরাইড’ নামের একটি স্যালাইন পুশ করে। স্যালাইনে লাগানো কাগজের মোড়কে স্যালাইনটি ২০১৪ সালের মে মাসে তৈরি এবং মেয়াদ ২০১৭ সালের মে মাস পর্যন্ত উল্লেখ আছে।

এর পর থেকে শিশুটির খিঁচুনি দেখা দেয় ও চোখ লাল হতে থাকে। তখন শিশুটির স্বজনদের সন্দেহ হলে তারা স্যালাইনটির মেয়াদ চেক করে দেখেন হাসপাতালের ব্যবহৃত স্যালাইনটি মেয়াদোত্তীর্ণ। তাতক্ষনিক তারা বিষয়টি কর্তব্যরত চিকিৎসক ও নার্সকে অবগত করেন।

এ ব্যাপারে জেলা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা: শওকত হোসেন জানান, শিশুটির অবস্থা এখন ভাল। আমাদের শিশু বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। আমি সার্বক্ষণিক খবর রাখছি শিশুটির।

মন্তব্য লিখুন

আরও খবর