আখাউড়ায় অপপ্রচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে মনিয়ন্দবাসী

প্রকাশিত: ২:০১ অপরাহ্ণ , ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শনিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে

রুবেল আহমেদ,আখাউড়া প্রতিনিধিঃ- ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় মনিয়ন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের হেড মাওলানা গাজীউর রহমান জিহাদীর বিরোদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি অজানা অপরিচিত লোকের ভিডিও আপলোড করে তার সম্মান নষ্ট করার উদ্দেশ্যে উঠে পড়ে লেগেছে স্থানীয় একটি কুচক্রি মহল।

আজ শনিবার(২৯-ফেব্রুয়ারী) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার মনিয়ন্দ দক্ষিণ পাড়া শেখ মার্কেটস্থ বাজারে এক মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী।

পরে মানববন্ধন শেষে একটি প্রতিবাদ মিছিল বের করে তদন্ত পূর্বক অপপ্রচারকারীদের বিচারের আওতায় আনার দাবিতে স্লোগান তুলে স্থানীয় জনতা।

এসময় মানবন্ধনে বক্তব্যদেন ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার ফিরোজ খন্দকার, এড. আবুল কালাম আজাদ, মনিয়ন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের বিদ্যুৎসাহী সদস্য মজিবুর রহমান চৌধূরী লিল মিয়া, সাবেক মেম্বার কাইয়ূম খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও (অবঃ) সার্জেন্ট গাজী আলী নেওয়াজ সহ এলাকার বিভিন্ন গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা, বক্তারা প্রত্যেকই এলায়কায় বিশৃৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করেন এবং অপপ্রচারকারী মিন্টুমৃধা, দুলাল মৃধা ও বাবুল মৃধার বিচারের দাবি করেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে মাওলানা গাজীউর রহমান জিহাদী বলেন, আমার সাথে মিন্টু মৃধার পারিবারিক দন্দ এবিষয়ে গত কিছুদিন আগে থানায় মামলা করে তাদেরকে এরেষ্ট করিয়ে থানায় নেয় পরে তারা ক্ষমা চাওয়াতে আমি তাদেরকে মামলা তুলে থানা থেকে বের করে আনি পারিবারিক বিষয় নিয়ে তারা কোথা থেকে একটি ভিডিও সংগ্রহ করে আমাকে হেয়প্রতিপন্ন করার উদ্দেশ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে একটি কুরুচীপূর্ণ ভিডিও আপলোড করে আমাকে জড়িয়ে লিখালিখি করছে যে আমি মনিয়ন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর সঙ্গে যৌনাচরন করেছি এ বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট যা আমি কোন দিন জানিওনা শুনিওনি আমি তাদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি করছি স্থানীয় সংসদ সদস্য মাননীয় আইনমন্ত্রী এড. আনিসুল হকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রির নিকট।

এবিষয়ে মনিয়ন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাছির উদ্দিন বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ের হেড মাওঃ গাজিউর রহমানের বিরোদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা,বানোয়াট, ভিত্তিহীন, এরকম কোন ঘটনা বিদ্যালয়ে ঘটেনি, আর কোন শিক্ষার্থী বা অবিভাবক কিংবা স্থানীয় কেউ এ পর্যন্ত মাও গাজিউর রহমানের নামে আমাদের কাছে কোন অভিযোগ দেয়নি, আমরা কোন দিন শুনিনি এমন ঘটনা, তবে তার সাথে যদি কারো পারিবারিক দন্দ থাকে তা আমার জানা নেই, আমার জানামতে তিনি খুবই ভাল একজন ইসলামিক শিক্ষক।